সিলেটের জকিগঞ্জে দেশের ২৮তম গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান

google news

গ্যাসক্ষেত্রসিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় দেশের ২৮তম গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান পাওয়া গেছে বলে জানিয়ে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেন, এই কূপ থেকে দৈনিক ১ কোটি ঘনফুট গ্যাস উৎপাদন করে জাতীয় গ্যাস গ্রিডে সরবরাহ করা যাবে।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি (বাপেক্স) এই গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার করে। সোমবার জ্বাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস ২০২১ উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে এ ঘোষণা দেন প্রতিমন্ত্রী।

এসময় প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, এই কূপ থেকে দৈনিক ১ কোটি ঘনফুট গ্যাস উৎপাদন করে জাতীয় গ্যাস গ্রিডে সরবরাহ করা যাবে।

বাপেক্স সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে তারা এই গ্যাসক্ষেত্রের অনুসন্ধান শুরু করে ৭ মে শেষ করে। চারটি স্তরে মোট ২৯৮১ মিটার পর্যন্ত অনুসন্ধান চালানো হয়।

চারটি স্তরের মধ্যে প্রথম স্তরে ২৮৯০ মিটার গভীরে ৬৮ বিসিএফ গ্যাসের সন্ধান পায় সংস্থাটি। তবে অন্য স্তরগুলোতে গ্যাসের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

প্রাপ্ত গ্যাসের মধ্যে ৭০ শতাংশ পুনরুদ্ধারযোগ্য মজুদ বিবেচনায় ৪৮ বিসিএফ উত্তোলন করা যাবে।

বাপেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলী জানান, টাকার অংকে আবিষ্কৃত গ্যাসের মূল্য প্রায় ১২৭৬ কোটি টাকার মতো।

এর আগে দেশে মোট ২৭ টি গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার হয়েছিলো, যেগুলোর মোট মজুদের পরিমাণ ছিলো ২৭ ট্রিলিয়ন ঘন ফুট। এর মধ্যে ২০১৯ পর্যন্ত ২০ ট্রিলিয়ন ঘনফুট ব্যবহার হয়েছে।

বর্তমানে দেশে ২০টি গ্যাসক্ষেত্র থেকে গ্যাস উৎপাদন করা হচ্ছে।

মতামত দিন